কম দামে কম্পিউটার

আমরা অনেকে বাজেট স্বল্পতায় পুরোনো কম্পিউটার বা ল্যাপটপ কিনি। কিন্তু আমাদের ধারণা নেই যে কতটা কম দামে একটা কম্পিউটার কেনা যায়। সে প্রসঙ্গেই আজ লিখছি।

কম্পিউটার কেনার ক্ষেত্রে প্রথমে ‘প্রয়োজন’ মাথায় রাখলে কী কিনবো সেটা বাছাই করা সহজ হয়ে যায়। ধরা যাক- আপনি প্রাথমিক কাজগুলোই করবেন, অফিস এপ্লিকেশন- ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ারপয়েন্ট, এক্সেস ব্যবহার করবেন, সে ক্ষেত্রে আপনার দামী কম্পিউটারের আসলেই প্রয়োজন নেই।

আপনি চাইলে ১২ থেকে ১৫ হাজার টাকায় কম্পিউটার কিনেই আপনার প্রয়োজন পূরণ করতে পারবেন। ব্রান্ড নিউ কম্পিউটারই এ দামে পাবেন। এক বছরের ওয়ারেন্টিসহ। কেনার ক্ষেত্রে আপনার একটু এ বিষয়ে জানাশোনা থাকলে ভালো। অথবা জানাশোনা আছে এমন কারো সহায়তা নিতে পারেন।

বর্তমানে বাজারে সবচেয়ে কম দামে থার্টিওয়ান মাদারবোর্ড পাওয়া যায়। আসুস, গিগাবাইট, এমএসআই- এ ধরণের ব্রান্ডের কোনো থার্টিওয়ান মাদারবোর্ড আপনি পাবেননা। যদি পান সেটা রিফেব্রিশড। ইসোনিক, গিগাসোনিক, অভো- এ ধরণের নতুন মাদারবোর্ড আপনি কিনতে পারবেন। দামও কম।

এই মাদারবোর্ডের সাথে ডুয়েলকোর প্রসেসর, ২/৪ জিবি ডিডিআরটু র‌্যাম লাগিয়ে সহজেই আপনি বাজেটের মধ্যে কম্পিউটার পেতে পারেন। হার্ডডিস্ক কতটুকু নেবেন সেটা আপনার ওপর নির্ভর করছে। তবে সাজেস্ট করছি, সম্ভব হলে একটা এসএসডি লাগিয়ে নিতে পারেন। এসএসডিতে উইন্ডোজ দেয়া থাকলে আপনার কম্পিউটার বেশ ভালো গতিতে কাজ করবে।

এই সময়ে এসে ডিভিডি ড্রাইভের খুব একটা প্রয়োজন পড়েনা। আমরা উইন্ডোজ দেয়ার ক্ষেত্রেও পেনড্রাইভ বুট করে দিতে পারি। ইসোনিক বা এ ধরণের মাদারবোর্ডকে চায়না মাদারবোর্ড বলা হয়। শুনে ঘাবড়াবার কিছু নেই। বড় বড় যত ব্রান্ড শোনেন, অধিকাংশই কিন্তু চায়নায় তৈরি।

আর কম দামী হলেও এই মাদারবোর্ডগুলো উইন্ডোজ ১০ কম্পিটেবল। আপনি সহজেই আপডেট অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে আপনার পিসি চালাতে পারেন। পাশাপাশি এডেবির সফটওয়্যার- বিশেষত ইলাস্ট্রেটর ও ফটোশপ আপডেট ভার্সন সেটাপ দিতেও কোনো সমস্যা হবেনা।

হাঁ, আপনি যদি পেশাদার গ্রাফিক ডিজাইনার বা ভিডিও এডিটর হোন, অটোক্যাড বা এ ধরেণের ভারি সফটওয়্যার নিয়ে কাজ করেন, আপনার যদি সুপার ফাস্ট কম্পিউটার প্রয়োজন হয়; সে ক্ষেত্রে এ ধরণের কম্পিউটার আপনার জন্য প্রযোজ্য হবে না। আপনি যদি পাবজি বা এ ধরণের গেম খেলতে চান, তবে আপনার জন্যও এাঁ নয়।

মনিটর নিয়ে বলি। আপনি এ ধরণের চায়না ব্রান্ডের মনিটরও পাবেন একেবারে কম দামে। হয়তো আপনি ভাবছেন স্যামসাং বা এইচপি জাতীয় কোনো ব্রান্ডের পুরোনো মনিটর কিনবেন, সে ক্ষেত্রে আপনি ওয়ারেন্টি পাচ্ছেননা। কিন্তু ইসোনিক বা এ জাতীয় ব্রান্ডের মনিটরে আপনি এক বছর ওয়ারেন্টি পাবেন।

সবটা মিলে ১২ থেকে ১৫ হাজারেই আপনি বাজেটের মধ্যে চলনসই কম্পিউটার কিনতে পারেন।

সতর্কতা: অবশ্যই বুঝেশুনে কিনবেন। নিজে কম বুঝলে যারা এ বিষয়ে জ্ঞান রাখেন তাদের সহায়তা নিন।